1. newsdex@kalerchaka.com : নিউজ ডেক্স : নিউজ ডেক্স
  2. royelllab@gmail.com : noor : কালের চাকা ডেক্স :
  3. kashiani09@gmail.com : Uzir Poros : Uzir Poros
  4. shaonbsl71@gmail.com : Shaharia Nazim Shaon Staff Reporter : Shaharia Nazim Shaon Staff Reporter
  5. soykatsn@gmail.com : Soykat Mahmud : Soykat Mahmud
  6. test@gmail.com : test :
সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন
নোটিস :
দৈনিক "কালের চাকা" পত্রিকার সকল স্টাফ, সম্পাদক পরিষদ সহ সকল লেখক, পাঠক, বিঞ্জাপনদাতা, এজেন্ট, হকার ও শুভানুধ্যায়ীদের জানানো যাচ্ছে যে দৈনিক কালের চাকা পত্রিকার লোগো পাল্টানো হয়েছে আপনার আজ থেকে কালের চাকা সংশ্লিস্ট সকল জায়গায় নতুন লোগো দেখতে পারবেন শুভেচ্ছান্তে - সম্পাদক ও প্রকাশক দৈনিক কালের চাকা

সিংড়ায় ঝুঁকিপূর্ণ সেতুর কারণে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন ৩০ হাজার মানুষ।

সামাউন আলী,সিংড়া (নাটোর)প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশ সময় : মঙ্গলবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
নাটোরের সিংড়া উপজেলার ০৭ নং লালোর ইউনিয়নের বক্তারপুর এলাকায় পানাউল্লাহ খালের ওপর ভাঙা সেতু দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছেন দু’পাশের প্রায় ৩০ হাজার মানুষ। দুই বছর আগে এখানে ভ্যান উল্টে মারা গিয়েছিল এক জেএসসি পরীক্ষার্থী। তাছাড়া বিভিন্ন সময় এখানে দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ২০ থেকে ১৫ জন।
এলাকাবাসী জানান, ভাঙা সেতুটির কারণে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগের শিকার হন শিক্ষার্থী, কৃষক এবং রোগীরা।
সেতুটি আংশিকভাবে ভাঙা ছিল প্রায় পাঁচ বছর ধরে। ২০১৮ সালে বন্যায় সেতুটি প্রায় পুরোপুরি ধসে পড়ে। বন্যার পর সেখানেই একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করেছিল স্থানীয় প্রশাসন।
কিছুদিন পর সাঁকোটিও ভেঙে পড়ে। এখন ঝুঁকি নিয়ে সেতুটি পারাপার করতে হচ্ছে বলে জানায় গ্রামবাসীরা।
সরেজমিনে গিয়ে  দেখা যায়, সিংড়া উপজেলার গোবিন্দনগর ডাকমন্ডপ, বারইহাটি, হামিরঘোষ, সোনাইডাঙ্গা, নাটোরের গোপালঘাট, এবং করেরগ্রাম, নলডাঙ্গার পাটুল, নওগাঁ জেলার আত্রাই উপজেলার বিশা ও সমসপাড়া গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ দুর্ঘটনার ঝুঁকি নিয়েই সেতুটি দিয়ে মালামাল, খাদ্যসামগ্রী ও কৃষিপণ্য পারাপার করেন। অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, রিকশা ও ভ্যানসহ প্রায় তিন শতাধিক যানবাহন প্রতিদিন সেতুটি পারাপার করে।
সেতুসংলগ্ন তেলীগ্রাম গ্রামের বাসিন্দা নুরজাহান বেগম বলেন, “জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেতুটি ব্যবহার করা ছাড়া আমাদের কোনও বিকল্প কোন পথ নেই।
পাটুল হাপানিয়া ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক,
 মো. আক্তারউজ্জান বলেন, সেতুটির জন্য হাজার হাজার মানুষ বছরের পর বছর দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। তবে স্থানীয় প্রশাসন সেখানে নতুন করে সেতু তৈরির জন্য উদ্যোগ নিচ্ছে না।
সিংড়া উপজেলার ০৭ নং লালোর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান, নজরুল ইসলাম জানান, সেতুর দুপাশে ডাকমন্ডপ প্রাথমিক বিদ্যালয়, ডাকমন্ডপ উচ্চ বিদ্যালয়, বারইহাটি মাদ্রাসা, বারইহাটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোবিন্দনগর প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ডাঙ্গাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বেশি ভোগান্তি পোহাচ্ছে।
সিংড়া উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী মো. হাসান আলী জানান, সেতুটি নির্মাণের জন্য তিনি প্রায় আড়াই কোটি টাকার প্রস্তাব প্রস্তুত করেছেন। তবে প্রস্তাববটি অনুমোদিত হতে এক বছরের মতো সময় লাগবে। এ কারণে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ স্থানীয় জন
প্রতিনিধিদের নির্দেশনা অনুযায়ী তৎক্ষণাত সেতুটি নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করেছে। চলতি বছরেই সেতুটি নির্মাণ সম্পন্ন হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

নিউজটি ফেচবুকে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের অন্যান্য সর্বশেষ সংবাদ

প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে

tamchsbd.org

কালের চাকা বন্ধু সংঘ

Royel Laboratories Ltd

সারা দেশে কমিটি গঠন চলছে!

eNoorbaba.com

© All rights reserved © 2020 kalerchaka.Com

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com